৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা – সেরা লাভজনক ৭ টি ব্যাবসার আইডিয়া 2022

৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা

৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা- ৫০ হাজার টাকার মধ্যে কোন কোন ব্যাবসা গুলো করলে লাভবান হওয়া যায়? এমন প্রশ্ন অনেকের মনেই আসে। যারা নতুন ব্যাবসা শুরু করবেন তাদের কাছে এসব প্রশ্ন আসা টাই স্বাভাবিক। আপনার বাজেট যদি ৫০ হাজার টাকা হয় তাহলে আপনাকে কোন ব্যাবসা গুলোকে বেছে নেয়া উচিৎ এ সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকা অনেক বেশী প্রয়োজন। ৫০ হাজার টাকায় আপনি অনেক ধরনের ব্যবসা শুরু করতে পারেন। যে ব্যাবসা গুলোতে আপনি সঠিক ভাবে শ্রম দিতে পারলে সফল হওয়ার চান্স অনেক টা বেশী।

৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা

আপনার কাছে যদি ৫০ হাজার টাকা থাকে তা দিয়েও সুন্দর ভাবে প্লান করে ব্যবসা করতে পারবেন। ব্যবসার শুরুতে হয়ত বা লাভের পরিমান অনেক কম হবে। পরবর্তী সময়ে আপনার ইনভেস্ট বাড়ার ফলে প্রতিনিয়ত ভালো পরিমান টাকা আয় করতে পারবেন। ৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা কর‍তে হলে আপনাকে নিশ্চিত ভাবে জেনে নিতে হবে আপনার কোন ব্যাবসা গুলো মূলত করা উচিৎ।

৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা করার আইডিয়া।  ব্যবসা নির্ভর করে সময়, কাল, স্থান ও ধরনের উপরে। আপনার আশেপাশের পরিবেশ ও অনেক টা দায়ী এর জন্য। আপনার যদি ব্যবসা সম্পর্কে মোটামুটি ধারনা থাকে তাহলে আপনি নিশ্চয়ই নির্ধারণ করতে পারবেন আপনার কোন ব্যবসা গুলো করা উচিৎ। আমরা সবসময়েই লাভজনক ব্যাবসা গুলোকে করার চেষ্টা করে থাকি। অল্প পুজিতে লাভজনক ব্যাবসা লাভজনক ব্যাবসা গুলো সহজেই সফলতা নিয়ে আসে।  

ব্যবসা শুরু করতে টাকার পরিমান নির্ধারণ করা হয় আপনি কোন বিষয় গুলোর উপরে ব্যবসা শুরু করতে চাচ্ছেন সেটার উপরে। আপনি যে ধরনের পণ্য নিয়ে ব্যবসা করবেন সেটার মূল্য যদি বেশী হয় তাহলে আপনাকে ইনভেস্ট এর পরিমান ও বাড়াতে হবে। তবে আপনি ৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা তে অনলাইন ও অফলাইনে কয়েকটি ব্যাবসা করতে পারবেন। নিচে ৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা করার আইডিয়া দিয়ে দিলাম। ৫০ হাজার টাকায় ৭ টি ব্যাবসার আইডিয়া

১- ই-কমার্স ব্যাবসা

পনার যদি আইটি সেক্টরে ভালো পরিমান দক্ষতা থাকে তাহলে ৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা এর মধ্যে এটি অনেক ভালো হবে। বাংলাদেশের ডিজিটাইলেসন শুরুর পর থেকে অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশের মানুষ ও দিন দিন অনলাইন নির্ভর হতে শুরু করেছে৷ অনলাইন নির্ভত হওয়ার পাশাপাশি অনলাইন থেকে বিভিন্ন ধরনের পন্য ক্রয় করতেও আগ্রহী হচ্ছে।  

চীনের বাজারে 1 নম্বর মোবাইল ব্র্যান্ড কোনটি – 2022

মূলত এই আগ্রহ কে কাজে লাগিয়ে শুরু করতে পারেন আপনিও ই-কমার্স ব্যাবসা। এর জন্য আপনাকে একটি ওয়েবসাইট, ফেসবুক পেজ তৈরি করে নিতে হবে। একটি ই-কমার্স সাইট ভালোভাবে তৈরি করতেই বেশ পরিমান টাকা আপনার ব্যায় হয়ে যাবে। এর পরে সেখানে বিভিন্ন কোম্পানির পণ্য গুলোকে বিক্রি শুরু করুন। প্রথম অবস্থায় অল্প কিছু জনপ্রিয় পণ্য গুলোকে সিলেক্ট করে শুরু করতে পারেন। আপনি ভালোভাবে করতে পারলে ৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা এর মধ্যে এটি করেও সফলতা নিয়ে আসতে পারবেন৷

২- কফি-শপ ব্যবসা

অল্প পুজিতে লাভজনক ব্যবসা হিসেবে কফি শপ ব্যবসা অন্যতম। আপনি যদি চান ৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা শুরু করবেন তাহলে কফি শপ এর ব্যাবসা আপনার জন্য অনেক ভালো কিছু বয়ে আনবে। কফি শপ এর ব্যবসায় অন্যান্য ব্যবসার তুলনায় রিস্ক অনেক টাই কম। আপনি যে ধরনের ব্যবসা করবেন সেখানেই আপনাকে রিক্স নিয়ে কাজ করে যেতে হবে। জীবনে যদি কোনো রিক্স না নিতে পারেন তাহলে কখনো সফলতা ও চলে আসবে না।

৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা
৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা

কফি শপ এর ব্যবসায় অতিরিক্ত মূলধন এর প্রয়োজন পড়ে না। এখানে একটা শপ শুরুতে পরিচালনা করতে আপনি একাই পারবেন। আপনার কাস্টমার চাহিদা অনেক বেশী হলে আপনি লোক নিয়েও কাজ করতে পারেন। ৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা যদি আপনি খুজে থাকেন নিশ্চিত ভাবেই বলা যায় এটি আপনাকে উপকার করে দিবে।

৩- মোবাইল রিচার্জ দোকান ব্যবসা

মোবাইল রিচার্জ এর প্রয়োজন পড়ে না এমন মানুষ হয়ত খুজে পাওয়া কঠিন। আপনি যদি ৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা করতে চান তাহলে এটি স্বল্প ইনভেস্ট এই শুরু করতে পারেন। মোবাইল রিচার্জ ব্যাবসায় আপনার দোকান রাখার প্রয়োজন পড়ে না। শুধুমাত্র একটি টুল আর টেবিল নিয়েও শুরুটা করতে পারেন। পরবর্তী সময়ে আসতে আসতে একটি দোকান ঘর, কম্পিটার ও মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ( বিকাশ, নগদ, উপায়) এগুলোতে সেন্ড মানি বা এজেন্ট নিয়ে বসতে পারেন।

৪- ড্রেস সেলিং ব্যবসা

আপনার যদি জামা-কাপড়ের ধরন, ডিজাইন, কোয়ালিটি এগুলো নিয়ে আইডিয়া থাকে তাহলে ড্রেস সেলিং আপনার জন্য অনেক ভালো একটা বিজনেস হতে পারে। আপনি প্রথমে পাইকারি রেটে ভালো ভালো ডিজাইনের কিছু ড্রেস,বোরখা,শাড়ি কিনে নিবেন। এর পরে সেগুলো সেল করা শুরু করবেন। প্রথমে একসাথে বেশি টাকা খরচ কর‍তে হবে না।

কিস্তিতে মোবাইল – কিস্তিতে কিভাবে মোবাইল ফোন কিনবেন? 2022

মাত্র ৫০ হাজার টাকার মধ্যে আপনি বিজনেস শুরু করতে পারবেন। রাস্তার সাইডে ছোট ভ্যানের মধ্যে আপনি ড্রেসগুলো নিয়ে সেল করতে পারেন। ইচ্ছে হলে ছোট একটি দোকান দিয়ে দোকানের মধ্যে সেল করতে পারেন। আবার অনলাইনে ও সেল করতে পারেন। কষ্ট ও ধৈর্য ধরে কাজ করতে পারলে আপনার ব্যাবসায় লাভ হবে ইন শা আল্লাহ। আপনারা যারা ৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা করতে আগ্রহী তারা চাইলে এটি করতে পারেন।

৫- প্লাস্টিক ও বাচ্চাদের খেলনা ও কিচেন আইটেম

৫০ হাজার টাকায় এটা অনেক ভালো একটা বিজনেস আইডিয়া। আপনি প্রথমে পাইকারি দামে প্লাস্টিকের জিনিসপত্র, বাচ্চাদের খেলনা আর কিচেন আইটেমগুলো কিনবেন। এরপরে সেগুলো বাজার দরে বিক্রি করবেন। রাস্তার পাশে ভ্যানে বসে সেগুলো সেল দিতে পারেন। বা ছোট দোকান বসিয়ে ও সেল দিতে পারেন। ৫০ হাজার টাকা দিয়েই এই কাজটি আপনি শুরু করতে পারবেন। ৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা এর মধ্যে এটি অন্যতম ভালো একটি ব্যবসা আইডিয়া।

৬- খাবারের দোকান ব্যবসা

আপনার যদি কম পয়সায় বিজনেস করার ইচ্ছে থাকে তাহলে এই পদ্ধতিটি আপনার জন্য বেষ্ট হবে। আপনি রাস্তার পাশে ছোট খাটো একটি খাবারের দোকান খুলে বসতে পারেন। সেখানে বিভিন্ন রকমেন ফাস্ট ফুডের আইটেম গুলো বানিয়ে বিক্রি করতে পারেন। বার্গার, হালিম, সেন্ডুইচ, রোল, নান, কাবাব ইত্যাদি বিভিন্ন আইটেম সেখানে রাখতে পারেন। অথবা ঝালমুড়ি, ফুচকা, সিঙ্গারা, পুরি, ছমচা এগুলো ও বিক্রি করতে পারেন। 

৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা
খাবার দোকান ব্যাবসা

মানুষ পছন্দ করে এরকম খাবারগুলো রাখার চেষ্টা করবেন। আর চেষ্টা করবেন দামগুলো হাতের নাগালে রাখতে তাহলে আপনার বিক্রি ভালো হবে। আর আপনার রান্নার হাত যদি ভালো হয় তাহলে তো কথাই নেই। কাস্টমারদের যদি আপনার রান্না খাইয়ে খুশি করতে পারেন তাহলে তারা বার বার আপনার দোকানেই আসবে। ৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা আইডিয়ার মধ্যে এটি অনেক বেশী লাভজনক।

আর আপনার হাতের রান্না খেতে চাইবে। খাবারের দোকান দাওয়ার জন্য আপনার বেশি খরচ করার ও প্রয়োজন হবে না। ৪০/৫০ হাজার টাকার মধ্যেই আপনি এই কাজ শুরু করতে পারবেন। প্রথমে অল্প অল্প আইটেম দিয়ে শুরু করবেন। এর পরে বিজনেস বড় হতে শুরু করলে আইটেম বাড়াবেন।

ওয়ালটন রাইস কুকারের দাম কত – Walton Rice Cooker Price in Bangladesh

আপনি ইচ্ছে করলে হোম ডেলিভারি ও দিতে পারেন। এতে আপনার পরিচিতি আরও অনেক বাড়বে।

৭- মাছের ফার্ম

আপনি যদি ৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা খুজে থাকেন তাহলে মাছের ফার্ম করতে পারেন। আজকাল অনেকেই মাছের ফার্ম থেকে সাবলম্বি হচ্ছেন। এ জন্য আপনার বেশি টাকা খরচ করতে হবে না। একটি পুকুর থাকলে তাতে আপনি কিছু পোনা মাছ পালন শুরু করবেন। মাছ বড় হলে সেগুলো বিক্রি করে আপনি লাভবান হতে পারবেন। তাছাড়া আপনি পোনা মাছ ও বিক্রি করতে পারবেন। ৫০ হাজার টাকা হলেই আপনি খুব সহজেই মাছের একটি ছোট ফার্ম দিতে পারবেন।

পরিশেষে কিছু কথা

৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা – আপনি যে কোনো কাজই করতে চান না কেনো আপনাকে অনেক বেশি পরিশ্রম করতে হবে। নাহলে আপনি জীবনে উন্নতি করতে পারবেন। আর যেহেতু আপনি ব্যবসার ক্ষেত্রে বেশি অর্থ ইনভেস্ট করতে পারবেন না তাই আপনাকে শরীর দিয়ে খেটে সেই কমতি পূরন করতে হবে। তাহলেই আশা করা যায় ধীরে ধীরে আপনি উন্নতি করতে শুরু করবেন।

About admin

In a world where you can have everything. Be a giver first. My hobbies are writing , gaming, and SEO 😊

View all posts by admin →

Leave a Reply

Your email address will not be published.