বিদেশ যাওয়ার জন্য কোন ব্যাংক লোন দেয়- কত টাকা লোন দেয়? 2023

বিদেশ যাওয়ার জন্য কোন ব্যাংক লোন দেয়

বিদেশ যাওয়ার জন্য কোন ব্যাংক লোন দেয়আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা বিভিন্ন ধরনের চাকরির অফার পেয়ে থাকেন। কিন্তু যথেষ্ট পরিমানে অর্থ না থাকার কারনে সহজেই বাহিরে যাওয়া সম্ভব হয়না। অনেকেই জানতে চান, বিদেশ যাওয়ার জন্য কোন ব্যাংক লোন দেয় সে সম্পর্কে। বাংলাদেশের কয়েকটি ব্যাংক এসব অবস্থায় আপনাকে পর্যাপ্ত পরিমান লোন দিয়ে সাহায্য করে থাকে। এ ক্ষেত্রে বিভিন্ন ব্যাংক অনুযায়ী তাদের চাহিদা পূরন করতে হবে।

বিদেশে যাদের চাকরি হয় বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তাদের লোন নিয়ে বেশি ঝামেলা পোহাতে হয়না। কয়েকটি কাজ সম্পাদনা করলেই বাংলাদেশের ব্যাংক গুলো থেকে স্বল্প সুদে লোন সেবা গ্রহন করা যায়৷ তবে আপনি তখনি লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন যখন আপনার বাহিরে কোনো চাকরি হবে।

প্রিয় বন্ধুরা, আসসালামু – আলাইকুম। আশা করি আপনারা অনেক ভালো আছেন। আমরা আজকে আলোচনা করব, বিদেশ যাওয়ার জন্য কোন ব্যাংক লোন দেয় সে সম্পর্কে। অনেকেই আছেন যারা পড়াশোনা শেষে বাহিরে চাকরির সন্ধান করতে করতে চাকরি পেয়েও গেছেন অথচ অর্থনৈতিক অবস্থা ভালো না থাকার কারনে যেতে পারছেন না। তাদের ক্ষেত্রে বেশ কয়েকটি ব্যাংক থেকে লোন সেবা গ্রহন করা যায়।

বিদেশ যাওয়ার জন্য কোন ব্যাংক লোন দেয় – এখানে আমরা যে ব্যাংকগুলো লোন সেবা প্রদান করে সেগুলা তালিকা আকারে দিয়ে দেব। ব্যাংক থেকে লোন নেয়ার জন্য কি কি কাগজ পত্র প্রয়োজন সে সম্পর্কে ও বিস্তারিত দেয়া থাকবে।

বিদেশ যাওয়ার জন্য কোন ব্যাংক লোন দেয়

বর্তমানে বিদেশ যাওয়ার জন্য অনেক গুলো ব্যাংক এই লোন দেয়। তবে আমরা এখান থেকে মাত্র ০৫ টি ব্যাংক কে বাছাই করব আজকের আর্টিকেলে তুলে ধরবো। সম্পুর্ন আর্টিকেল পড়ে, প্রতিটি ব্যাংকে ভালো ভাবে খোজ নিয়ে তারপরেই কেবল লোনের জন্য আবেদন করা বুদ্ধিমানের কাজ হবে। বিদেশ যাওয়ার জন্য কোন ব্যাংক লোন দেয় সে সম্পর্কে নিচে ০৫ টি ব্যাংকের নাম ও লোন নেয়ার জন্য কি কি প্রয়োজন সেগুলা দিলামঃ-

১- সোনালি ব্যাংক

দেশের অন্যতম সেরা একটি ব্যাংকের নাম হলো সোনালি ব্যাংক। বর্তমানে বিদেশ যাওয়ার জন্য সোনালি ব্যাংক লোন প্রদান করে থাকে। আপনার বিদেশ যাওয়ার বিমান খরচ থেকে শুরু করে সব খরচ এই তারা বহন করবে। তবে লোনের সর্বোচ্চ পরিমান হলো- ৩ লাখ টাকা।

আরো পড়ুন-

গেম খেলে টাকা আয় – Bitcoin Pop দিয়ে মোবাইল দিয়ে আয় করুন সহজেই – 2022

লোনের মেয়াদ ৩ মাস ও গ্রেস পিরিয়ডসহ সর্বোচ্চ ২৪ -৩৬ মাস। আপনার চাকরি কত বছর থাকবে সেটার উপরে নির্ভরশীল আপনাকে কত দিনে লোন পরিশোধ করতে হবে। লোনের ক্ষেত্রে আপনাকে ১২% হারে সরল সুদ প্রদান করতে হবে।

২- প্রবাসী কল্যান ব্যাংক

যারা খুজেন বিদেশ যাওয়ার জন্য কোন ব্যাংক লোন দেয় তাদের জন্য অন্যতম পছন্দের ব্যাংক হতে পারে প্রবাসী ব্যাংক। কারন, এই ব্যাংক থেকে আপনি সর্বোচ্চ ২৪ কিস্তিতে বিদেশে যাওয়ার জন্য লোন নিতে পারবেন। সরল সুদের দিতে হবে ৯% হারে। লোন আপনি কি পরিমান নিবেন সেটা নির্ভর করে কোন দেশে আপনি চাকরি করবেন সেটার উপরে দেশভেদে লোনের পরিমান কম/বেশী হয়। গ্রেস প্রিয়ড পাবেন ২ মাস।

৩- এন আর বি গ্লোবাল ব্যাংক – NRB Global Bank

বিদেশ যাওয়ার জন্য কোন ব্যাংক লোন দেয় তাদের মধ্যে এটি একটি। এই ব্যাংক থেকে আপনি ১৪% সুদের হারে লোন নিতে পারবেন। সর্বোচ্চ লোনের পরিমান- ৩ লাখ টাকা। ৩ মাস গ্রেস প্রিয়ড সহ ১২, ২৪, ও ৩৬ কিস্তিতে এই লোন নিতে পারবেন। লোন নেয়ার জন্য বিস্তারিত জানতে পারবেন NRB Bank এর যে কোনো ব্রাঞ্চ থেকে।

আরো পড়ুন-

ফটো এডিট করার ভালো এপ্স কোনটি – Best 5 Photo Editing Apps

৪- অগ্রনী ব্যাংক

বিদেশ যাওয়ার জন্য যারা লোন নিতে চাচ্ছেন তাদের কে দিচ্ছে অগ্রনী ব্যাংক লোনের সুবিধা। ১৫ কিস্তির মাধ্যমে অগ্রনী ব্যাংক থেকে লোন নিতে পারবেন। লোনের পরিমান সর্বোচ্চ থাকবে – ৩ লাখ টাকা পর্যন্ত। সর্বনীম্ন লোন হিসেবে আপনারা ৫০ হাজার টাকা ও নিতে পারবেন।

৫- পুবালি ব্যাংক

কোনো প্রকার জামানত ছাড়াই বিদেশ যাওয়ার জন্য লোন প্রদান করে পুবালি ব্যাংক। সর্বোচ্চ ২ বছরের মধ্যে ২৪ টি কিস্তির মাধ্যমে লোন পরিশোধ করতে হবে। লোনের পরিমান সর্বোচ্চ ২.৫ লাখ টাকা পর্যন্ত। যিনি লোন নিবেন বিদেশের এজেন্সির মাধ্যমে চুক্তি করে রাখতে হবে। তবে জামানত রাখার চাহিদা তাদের নেই।

আরো পড়ুন-

ডিজিটাল মার্কেটিং কি – ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে করে বিস্তারিত

বিদেশ যাওয়ার লোনের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজ-পত্র

বিদেশ যাওয়ার জন্য কোন ব্যাংক লোন দেয় আশা করি উপরের ০৫ টি ব্যাংক সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। এখন, কথা হলো লোন কিভাবে নিবেন। লোন নেয়ার জন্য কি কি কাগজপত্র দরকার। ব্যাংক অনুযায়ী বিভিন্ন ব্যাংকে আলাদা আলাদা ডকুমেন্টস দেয়ার প্রয়োজন পরে। তারপরেও লোনের পূর্বে নিচে দেয়া লিস্ট অনুযায়ী কাগজপত্র জোগাড় করে রাখবেন এর পরে ব্যাংক থেকে নির্দেশনা নিবেন-

  • ব্যাংক কর্তৃক লোনের আবেদন ফর্ম পূরন ( প্রতিটি ব্যাংকের লোনের ফর্ম অনলাইনে ব্যাংকের ওয়েবসাইটে পাওয়া যায়)
  • আপনার সদ্য তোলা ০৫ কপি ছবি
  • জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি
  • নাগরিকত্ব সনদ
  • যাদের কে জামানত হিসেবে রাখবেন তাদের প্রত্যেকের ( ৪ কপি ছবি, নাগরিকত্ব সনদ, জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি)
  • এর পরে একাউন্ট তৈরি করা সহ, এজেন্সি কর্তৃক যাবতীয় কাগজ পত্র সম্পর্কে ব্যাংক থেকে জেনে নিবেন। এর পরে সে অনুযায়ী জোগাড় করে লোনের জন্য আবেদন করবেন।

আমাদের শেষ কথা

বিদেশ যাওয়ার জন্য কোন ব্যাংক লোন দেয় – আশা করি আপনারা সম্পুর্ন বিষয় টি বুঝতে পেরেছেন। লোন সম্পর্কে কোনো কিছু জিজ্ঞাসা করার থাকলে যে ব্যাংক থেকে আপনি লোন নিতে আগ্রহী সে ব্যাংকের হটলাইন নাম্নারে ফোন দিয়ে জেনে নিবেন। যেহেতু আপনি ব্যাংক থেকে লোন নিবেন তাই সব কিছুই ভালো করে যাচাই-বাছাই করে নিবেন।

যে কোনো ধরনের জিজ্ঞাসার জন্য। আমাদের সাথে যুক্ত হতে পারেন আমাদের ফেসবুক পেইজে। সবার আগে আমাদের আর্টিকেল পড়তে ফলো করুন আমাদের Google News এ।

আরো পড়ুন-

টিকটক ভিডিও ভাইরাল করার উপায় – টিকটকে ফেমাস হয়ে যান এই উপায় গুলো ফলো করে – 2023

About admin

In a world where you can have everything. Be a giver first. My hobbies are writing , gaming, and SEO 😊

View all posts by admin →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *