পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায় গুলো জেনে নিন

পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায়

পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায়-

Table of Contents

আমাদের বর্তমান জেনারেশনের ছেলে মেয়েদের সবথেকে বড় যেই সমস্যাটা সেটা হচ্ছে তাদের পড়ায় একদম মন বসতে চায় না। এর সমাধান বের করার জন্য সবাই নেট দুনিয়ায় ঘাটাঘাটি করতে থাকে।
আজকে আমরা কিছু টিপস দিবো যেগুলো ঠিক ভাবে মেনে চলতে পারলে পড়াশোনায় মন বসবে ইন শা আল্লাহ।

আমাদের মধ্যে অনেক ছাত্র ছাত্রী আছে যাদের পড়াশোনায় একদম মন বসে না। আমরা আজ বলি কাল পড়বো আর কাল বলি পরশু পড়বো। এরকম মাসের পর মাস চলে যায় কিন্তু আমাদের পড়াশোনা আর হয় না। এই কারনে আমরা পরিক্ষায় ভালো ফলাফল অর্জন করতে পারি না। আজকে আমরা জানবো পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায়।

পড়াশোনায় মন বসে না কেনো?

আমাদের পড়াশোনায় মন না বসার কারন হচ্ছে আমাদের জিবনের লক্ষ্য না থাকা। পড়াশোনা করা আমাদের কেনো প্রয়োজন আমরা এই টাই অনেকে জানি না, ক্লাসের কিছু খারাপ স্টুডেন্টদের সাথে মেলামেশা করি যার করনে আমরা ও খারাপ স্টুডেন্ট হয়ে যাই। খারাপ ছাত্র ছাত্রীদের কোনো লক্ষ্য থাকে না, তাই তারা পড়াশোনায় মনোযোগী হতে পারে না।

পড়াশোনায় কিভাবে মনোযোগী হবো?

পড়াশোনায় মনোযোগী হতে হলে প্রথমে জিবনের লক্ষ্য ঠিক করুন। নিজের কাছে নিজে প্রশ্ন করুন। আমি কেনো পড়াশোনা করবো? আমি পড়াশোনা করে কি হবো? যখন এই প্রশ্নের উত্তর পাবেন তখনই আপনার পড়াশোনায় মন বসবে। বর্তমান যুগে আমাদের পড়াশোনায় মন না বসার অন্যতম কারন হচ্ছে মোবাইল ফোন।

আমাদের প্রায় সবার হাতে এখন মোবাইল ফোন থাকে। আমরা এই মোবাইল ফোন এ অশক্ত হয়ে গেছি। আমরা বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় অশক্ত। টিকটক লাইকি ফেসবুক ম্যাসেন্জার এবং বিভিন্ন গেমস এ অশক্ত। যার কারনে আমরা বর্তমান যুগে মোবাইল ফোন এর ভিতরে সীমাবদ্ধ থাকি। বাহিরের প্রকৃতিটাকে উপভোগ করা হয় না তেমন আমাদের। মোবাইল ফোন আমাদের পড়াশোনায় মন না বসার অন্যতম কারন।

মোবাইল ফোন আমাদের অনেক গুরুত্বপূর্ন সময় কেরে নেয় যা আমরা কল্পনা ও করতে পারি না। মোবাইল ফোন আমাদের পড়াশোনার সময় ও কেরে নেয়। আমরা যখন পড়তে বসি তখনই মোবাইল ফোন এর কথা মনে পরে যায়। আমরা বই রেখে আবার মোবাইল ফোন ব্যাবহার করা শুরু করে দিই। আমাদের আর পড়া হয় না। পড়াশোনায় মনোযোগী হতে হলে মোবাইল ফোন ব্যবহার করা আস্তে আস্তে কমিয়ে আনতে হবে। পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায় গুলো অনুযায়ী রুটিন সাজাতে হবে।

ইংরেজি শেখার সহজ উপায় – ইংরেজির শেখার ধাপ গুলো জেনে নিন

প্রতিদিন কত ঘণ্টা মোবাইল ব্যাবহার করবেন তার একটা রুটিন করুন। আর কত ঘণ্টা বই পড়বেন তার ও একটা রুটিন করুন। এবং রুটিন অনুযায়ী পড়াশোনা করতে থাকুন। নিরব স্থানে বসে পড়াশোনা করুন । খুব মনোযোগ দিয়ে বই পড়ুন। নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস রেখে পড়াশোনা চালিয়ে গেলে সফলতা আসবেই। কথায় আছে কষ্ট না করলে কেষ্ট মেলে না।

আমি পড়া মনে রাখতে পারি না কেনো?

মহান আল্লাহ তায়ালা আমাদের মানব মস্তিষ্ককে অনেক মজবুত করে তৈরি করেছে, যা আমরা কল্পনা ও করতে পারি না। আমাদের মানব মস্তিষ্ক অসংখ্য নিউরন দিয়ে তৈরি। আমরা কম্পিউটারের মেমোরি দেখে অবাক হই, কিন্তু তাও নির্দিষ্ট যায়গা ভিতর সীমাবদ্ধ। কিন্তু আমাদের মানব মস্তিষ্ককের কোনো সীমা নেই। মানব মস্তিষ্ক এতো বড় যে এক জিবনে তা শেষ করা সম্ভব না।

কিন্তু দুঃখের বিষয় হলো আমরা পুরো জিবনে আমাদের ব্রেইনকে ৫% ও কাজে লাগাতে পারি না। আমরা পড়াশোনা শুনা ভুলে যাই তার অন্যতম প্রধান কারন হলো আমরা মনোযোগ দিয়ে পড়ি না, পরার সময় নানা চিন্তা ভাবনা করতে থাকি যার করনে আমাদের মস্তিষ্ক পড়া মনে রাখতে পারে না। পড়ার সময় সব চিন্তা ভাবনা বাদ দিয়ে শুধু বই এর প্রতি মনোযোগ দিন।

মন আর মস্তিস্ক এর মধ্যে পার্থক্যটি কী ? বিস্তারিত জেনে রাখুন

পড়ার জন্য নির্দিষ্ট স্থান ঠিক করুক, যেখানে আপনাকে কেউ বিরক্ত করবে না, এমন যায়গা ঠিক করুন। যেটা পড়বেন ঐ টা বার বার রিভাইস দিন মানি বার বার পড়ুন, এতে আপনার মস্তিষ্ক ঐ পড়া খুব ভালো করে ধারণ করতে সক্ষম হবে। পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায় গুলো অনুযায়ী পড়তে হবে।

পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায়

পড়াশোনা একবারে সহজ বিষয় ও নয়, আবার একেবারে কঠিন বিষয় ও নয়। যেকোনো বিষয় নিজের আয়াত্তে আনার জন্য দরকার কঠিন পরিশ্রম আর নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস। শুধু কঠিন পরিশ্রম করলেই হবে না, কৌশলগত ভাবে পরিশ্রম করতে হবে। কৌশলগত ভাবে কি ভাবে পড়াশোনা করবে তা নিচে আলোচনা করা হলো। পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায় গুলো নিচে বিস্তারিত দেয়া হলো।

পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার ইসলামিক উপায়

আমরা অনেকেই পড়ার আসল অর্থ টা জানি না।
পড়তে বসলে আমাদের একটাই উদ্দেশ্য থাকে কিভাবে পড়া মুখস্ত করবো।যার কারনে আমরা চেষ্টা করতে থাকি মুখস্থ করতে। তাড়াহুড়ো করে মুখস্থ করতে চাই। যেনো মুখস্থ করতে পারলেই আমরা জয়ী হয়ে যাবো।

মহান আল্লাহ রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে ওহি আসার পর তা মুখস্ত করার বিষয়ে তাড়াহুড়ো করতে নিষেধ করেছেন। বরং ধীরস্থিরতা অবলম্বনের উপদেশ দিয়েছেন।]

সুতরাং মহান আল্লাহর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে দেয়া এ উপদেশ দ্বারা এটা প্রমানিত হয় যে আমাদের পড়াশোনার ব্যাপারে তাড়াহুড়ো করা যাবে না।একটা পড়া পড়তে গেলে বুঝে শুনে আয়স্ত করতে হবে। পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায় আপনাকে মনোযোগ বাড়াতে সাহায্য করবে।

SSC পরীক্ষায় ভালো করার উপায় জানুন

নিম্নে একটি দোয়া দাওয়া হলো যেটি মানুষের মুখস্ত শক্তি বাড়াতে সাহায্য করবে ইন শা আল্লাহ।
উচ্চারণ : ‘রাব্বি যিদনি ইলমা।
পড়াশোনায় মনোযোগ দৃঢ় করার জন্য এই দোয়াটি ও পড়তে পারেন-
দোয়া– আল্লাহুম্মা ছাব্বিতনী ওয়াজআলনী হাদিইয়্যাম মাহদিইয়্যা।
বাংলা অর্থঃ হে আল্লাহ! আপনি আমাকে দৃঢ় রাখুন, এবং পথ প্রদর্শক ও সুপথপ্রাপ্ত বানান। (সহীহ বুখারী-৩০, সহীহ মুসলিম-২

অনেক সময় দেখা যায় পড়তে পড়তে মাথায় কাজ করছে না। খুব অসহ্য লাগছে। অস্থির লাগছে। তখন বই পড়া থেকে উঠে অযু করে একটি কুরআন তিলাওয়াত করে নিবেন। এরপরে আবার পড়তে বসবেন। দেখবেন আপনার মন শান্ত হয়ে গেছে। আগের মতো অসস্থি কাজ করছে না। পড়তে ভালো লাগছে।

বিছানায় পড়তে বসা থেকে বিরত থাকুন

পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায় গুলোর জন্য আপনাকে টেবিলে পড়তে বসতে হবে। অনেকে বিছানায় পড়তে বসে। যার জন্য পড়ায় ঠিক ভাবে মনোযোগ বসে না। ঘুম ঘুম আসে। অলসতা কাজ করে। যার জন্য অবশ্যই টেবিল চেয়ারে পড়তে বসতে হবে। পড়তে বসার সময় প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র যেমন- বইপত্র,খাতা,কলম,স্কেল,রুল,রাবার,কাটার,পেন্সিল, জ্যামিতি বক্স সব কিছু কাছাকাছি নিয়ে পড়তে বসবেন যাতে বারবার টেবিল থেকে উঠতে না হয়।
টেবিলের পাশে পানির ব্যবস্থা ও রাখবেন। যাতে পানির পিপাসা পেলে টেবিল থেকে উঠতে না হয়।

পড়তে বসার আগে প্রস্তুতি নিয়ে পড়তে বসা

পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায় এর মধ্যে আমরা অনেকেরই দেখা যায় পড়তে বসলে খিদে লাগে। খেতে খেতে পড়া আর হয় না।
তাই পড়তে বসার আগে পেট ভরে খেয়ে নিয়ে হবে। গুরুত্বপূর্ণ কোনো কাজ থাকলে শেষ করে পড়তে বসবেন। যাতে মাথা ঠান্ডা করে নিষ্চিন্তে পড়তে বসতে পারেন। পুরো প্রস্তুতি নিয়ে পড়তে বসবেন যাতে বই পড়া ছাড়া মাথায় অন্য কোনো চিন্তা না আসে।

বই এর সাথে সম্পর্ক করুন

আমরা বই এর সাথে সম্পর্ক করতে পারি না বলেই বই পড়তে মন চায় না। আমরা সম্পর্ক করি মোবাইল ফোনের সাথে, তাই আমরা নিজের অজান্তেই মোবাইল ফোন বেশি সময় ব্যাবহার করে থাকি। তাই আমাদের আগে বই এর সাথে সম্পর্ক করতে হবে। বই সাথে রাখতে হবে। এবং নিয়মিত বই পড়ার অভ্যাস করতে হবে। তাহলেই আমাদের বই এর সাথে ভালো সম্পর্ক হয়ে যাবে। এতে আমাদের বই পড়তে আর বিরক্ত লাগবে না।

অনলাইনে শিক্ষা গ্রহণ করা ৫টি অ্যাপসসমূহ বিস্তারিত

পড়তে বসার আগে মোবাইল ফোন দূরে সরিয়ে রাখুন

পড়ায় মনোযোগ আনার জন্য বই পড়তে বসার আগে আপনার মোবাইল ফোনটিকে সাইলেন্ট করে অনেক দূরে কোথাও সরিয়ে রাখুন যাতে পড়তে বসলে চোখে না পড়ে। কারন দেখা যাবে আপনি পড়তে বসলেন। মোবাইলে একটা ম্যাসেজের নোটিফিকেশন আসলো আর টুন করে আওয়াজ হলো। ব্যাস! আপনার সব মনোযোগ এখন মোবাইল ফোনের দিকে চলে যাবে। আপনি ফোনটা হাতে নিবেন।

ভাবেন যে যাষ্ট দুইটা মিনিট একটু দেখি ফোনটা। কিন্তু দেখবেন কোথা থেকে দু ঘন্টা চলে যাবে টেরও পাবেন না। তাই পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার জন্য পড়তে বসার আগে ফোনটাকে হাতের নাগালের বাইরে সরিয়ে রাখবেন। পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায় এর মধ্যে এটি গুরুত্বপূর্ণ।

নিজের জীবনের লক্ষ্য নির্ধারন করতে হবে

পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার জন্য আপনার জীবনের লক্ষ্য নির্ধারণ করা অনেক বেশি জরুরি । আপনি জীবনে কি হতে চান সেটা ভাবুন। ধরুন আপনি ডাক্তার হতে চান। ডাক্তার হতে হলে আপনাকে অনেক বেশি পড়াশোনা করতে হবে। পড়তে বসে ভাবুন যে আপনি যদি ঠিকভাবে পড়াশোনা না করেন তাহলে আপনার পরিক্ষা ভালো হবে না।

আর পরিক্ষা ভালো না হলে রেজাল্ট খারাপ আসবে।প্র‍য়োজনে কথাগুলো একটি কাগজে লিখে পড়ার টেবিলের সামনের দেয়ালে লাগিয়ে রাখুন। এতে পড়তে বসলেই লেখাটা আপনার চোখে পড়বে। আর পড়ার আগ্রহ তৈরি হবে।পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায় এর জন্য এটি সহায়তা করবে আপনাকে।

অল্প পড়ে ভালো রেজাল্ট করার উপায়

পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায় এর মাধ্যমে আপনি যদি অল্প পড়ে ভালো রেজাল্ট করতে চান তাহলে আপনাকে সবার থেকে আলাদা হতে হবে। যখন আপনি পড়তে বসবেন তখন একটা ঝামেলা মুক্ত যায়গায় পড়তে বসবেন। এবং খুব মনোযোগ সহকারে পড়বেন। পড়ার সময় পড়া ছাড়া অন্য কোনো চিন্তা মাথায় আনবেন না, শুধু মনোযোগ সহকারে পড়বেন। যতটুকু পড়বেন ততোটুকু মনোযোগ সহকারে পড়বেন। তাহলে আপনি সবার থেকে এগিয়ে থাকবেন। এবং অল্প সময় পড়ে পরিক্ষায় ভালো ফলাফল অর্জন করতে পারবেন।

পড়ার জন্য আদর্শ সময় নির্ধারন করুন

আপনার কখন পড়তে ভালো লাগে সেই সময়টা বেছে নিন পড়ার জন্য। যখন দেখবেন আপনার পড়তে ভালো লাগছে। একটা পড়া একবার পড়েই মিনে রাখতে পারছেন। ওই সময়টা কে কাজে লাগান। দেখবেন আপনার পড়ার প্রতি আগ্রহ কাজ করবে। পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায় এটি ফলো করতে পারেন।

ভোর বেলায় পড়তে বসার অভ্যাস করুন

আমরা অনেকেই আলস্য জীবন-যাপন করি। সকালে অনেক দেরি করব ঘুম থেকে উঠি। কিন্তু
পড়ায় মনোযোগ আনার একটি কার্যকর প্রক্রিয়া হচ্ছে খুব সকালে উঠে পড়তে বসা।
সারা রাত ঘুমানোর ফলে আমাদের শরীর মন দুটোই ফ্রেস থাকে ভোর বেলায়। এর পরে আপনি যখন নামাজ পড়ে পরতে বসবেন দেখবেন মনটা বেশ প্রানবন্ত লাগছে। একটা পড়া একবার পড়েই মনে রাখতে পারছেন। তখন পড়তে আরও ভালোলাগবে। তাই খুব সকালে উঠে পড়তে বসার অভ্যাস করুন। পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায় এর মধ্যে এটি অন্যতম উপায়।

জীবনে উন্নতির ৫টি অভ্যাস বিস্তারিত জানুন

পড়াশোনা নিয়ে অতিমাত্রায় দুশ্চিন্তা করবেন না

পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায় যদি খুজে থাকেন তাহলে এই উপায় ফলো করতে পারেন আপনিও। অনেকেই পড়তে বসলে যতো ধরনের দুশ্চিন্তা আছে সব করা শুরু করে দেন। ভাবেন যে আমার তো কিছুই পড়া হয়নি। আমার অমুক বন্ধুরাতো বই শেষ করে ফেলেছে। আর আমি বইয়ের দু পাতাও শেষ করতে পারিনি। পরিক্ষার আর মাত্র কয়েকটি দিন বাকি আছে। আমি বুঝি ফেইল করবো। আমার বন্ধুরা অনেক ভালো রেজাল্ট করবে। ওরা তো হাসবে আমাকে দেখে। এমন চিন্তা ভাবনা করা যাবে না।

একটা কথা মনে রাখবেন দুশ্চিন্তা আপনার শত্রু। আপনি যতই দুশ্চিন্তা করেন আপনার মন আরও অশান্ত হয়ে পড়বে। ভাববেন যে আর পড়ে কি হবে। আমি তো ফেইল ই করবো। আপনার আর পড়ায় মন বসবে না। তাই এইসব চিন্তা না করে ভাব্বেন যে আমি পারবো। আমার দ্বারা হবে। আমি পরিক্ষায় ভালো করবো। এগুলো ভেবে পড়তে বসবেন।
দেখবেন পড়ায় মন বসবে।

নিরিবিলি পরিবেশ পড়ার জন্য বেছে নেবেন

পড়তে বসার জন্য এমন যায়গা বেছে নিবেন যেখানে জনসমাগম কম। খুব নিরিবিলি পরিবেশ থাকবে। পড়তে বসলে যেনো বাইরের আওয়াজ আপনার কানে না আসে।এতে পড়ায় ভালো মনোযোগ আসবে।

Gamification টেকনিক অবলম্বন করে পড়ার প্রতি আগ্রহ বাড়ানো

পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায় এর মধ্যে এই উপায় হলো Gamification টেকনিক হলো পড়াশোনাকে গেইমের মতো বানিয়ে নেওয়া। অর্থাৎ গেইমে যেমন বিভিন্ন লেভেল থাকে ঠিক সেইরকম পড়াশোনায় ও এপ্লাই করা।বইয়ের বিভিন্ন চাপ্টারগুলোকে গেইমের লেভেল এর মতো বানিয়ে পড়া শুরু করতে পারেন। এক একটা লেভেল শেষ করার পরে নিজেকে একটা কিছু গিফট করতে পারেন। এতে আপনার পড়ার ইন্টারেস্ট আসবে। এবং পড়তে ভালো লাগবে।

পড়াশোনা নিয়মিত করার চেষ্টা করুন

নিজে নিজে একটা রুটিন তৈরি করুন, ঐ রুটিনে প্রতিদন কত ঘণ্টা পড়বেন আর কোন সাবজেক্ট গুলো পড়বেন সেটা লিখে রাখুন। প্রতিদিনের পড়া প্রতিদিন শেষ করুন। মনে রাখবেন পড়া ফাকিঁ দেওয়া মানি নিজেকে ফাঁকি দেওয়া।

শিক্ষকদের কথা মেনে চলা

শিক্ষক আমাদের মাথার তাজ সমতুল্য। শিক্ষকদের কাছ থেকেই আমাদের শিক্ষা জিবন শুরু হয়, তাদেরকে যথাযথ সম্মান করুন। শিক্ষকদের কথা সব সময় মেনে চলুন। শিক্ষকদের কথা মনোযোগ সহকারে শুনুন, শিক্ষকদের আদেশ সর্বদা মেনে চলুন।

গুরুত্বপূর্ণ পড়া মুখস্থ করুন

আমরা অনেকেই না বুঝে পড়া মুখস্থ করতে থাকি যার কারনে অন্যদের থেকে বেশি পড়াশোনা করে ও পরিক্ষায় ভালো ফলাফল অর্জন করতে পারি না। তাই মুখস্থ বিদ্যা বর্জন করুন, বুঝে বুঝে পড়াশোনা করুন। গুরুত্বপূর্ণ বিষয় গুলো মুখস্থ করুব এবং পড়ার সময় গুরুত্বপূর্ণ লাইন গুলো মার্ক করে রাখুন।

খেলাধুলা ও ব্যায়াম

শুধু পড়াশোনা করলেই হবে না, নিজেকে সময় দিন। শরীর ও মনকে শতেজ রাখার চেষ্টা করুন। শরীর ও মনকে শতেজ রাখার জন্য খেলাধুলা ব্যায়াম ও ফ্রেডদের সাথে আড্ডা দিন। এতে মন ও শরীর দুইটাই ভালো থাকবে। এবং আপনার পড়াশোনা ও ভালো হবে।

পরিশেষে কিছু কথা

পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার সহজ উপায়ঃ জিবনের লক্ষ্য ঠিক করুন। যেকোনো বিষয়ে মনোযোগী হওয়ার চেষ্টা করুন। নিয়মিত পড়াশোনা করুন, কৌশল অবলম্বন করুন। মনে রাখ
বেন জিবন একটা যুদ্ধ ক্ষেত্র আর আপনি যোদ্ধা, আপনাকে লড়াই করে বেচে থাকতে হবে। সময় গেলে আর সময় ফিরে আসে না, তাই সময়কে কাজে লাগান। কোনো কিছু অবহেলা করবেন না। নিজের প্রতি সব সময় আত্মবিশ্বাস রাখুন। মনে রাখবেন কিছু না করলে জয়ধ্বনি শোনা যায় না।

করোনায় শিক্ষা ব্যবস্থায় ৫টি পদক্ষেপ জানুন

পড়াশোনা সম্পুর্ন নিজের ব্যাপার। আপনাকে পড়াশোনা করতেই হবে তাতে যেভাবেই হোক। আপনি শুধু খুজতে থাকবেন কিভাবে আপনার পড়ার আগ্রহ বাড়ে। আর সেই প্রক্রিয়া অবলম্বল করবেন। যদি শুয়ে পড়তে ভালো লাগে,শুয়ে পড়বেন। যদি বসে পড়েতে ভালো লাগে বসে পড়বেন। আর যদি হাটাহাটি করে পড়লে আপনার পড়া বেশি মনে থাকে, তাহলে সেভাবেই পড়বেন। পড়াশোনা ভালো লাগার ব্যাপার। জোর করে কখনওনই পড়াশোনা হয় না।আপনাকে পড়াশোনাকে ভালো লাগাতে হবে। তবেই পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়া যাবে।

About admin

In a world where you can have everything. Be a giver first. My hobbies are writing , gaming, and SEO 😊

View all posts by admin →

Leave a Reply

Your email address will not be published.