জুমার নামাজের নিয়ত, নিয়ম ও ফজিলত সম্পর্কে বিস্তারিত

জুমার নামাজের নিয়তঃ জুমার নামাজ প্রতি সপ্তাহে এক বার আসে। আমরা জানি, যে জুমার নামাজ আদায় না করলে সে মুসলমানদের অন্তর্ভুক্ত নয়।জুমার নামাজে গুরুত্ব ও ফজিলতের কোন শেষ নেই। আমরা এমন অনেক মানুষ আছি যারা পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করি না কিন্তু জুমার নামাজ আদায় করি। এতে আপনি কোন ফজিলত পাবেন না জুমার নামাজের।

তবে অনেকে আছে যারা পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ ঠিক মতো আদায় করে এবং জুমার নামাজ ও আদায় করে তাদের জন্য রয়েছে অনেক ফজিলত বা আল্লাহর অশেষ নিয়ামত। যার কোন শেষ নাই। জুমার নামাজের নিয়ত পোষ্টে এ সম্পর্কে বিস্তারিত লিখবো।

আজকে আমরা জুমার নামাজের ফজিলত সম্পর্কে আলোচনা করবো ইনশাআল্লাহ। জুমার নামাজ কি? জুমার নামাজ কি ফরজ? কোথা থেকে আসছে, এর গুরুত্ব কি?  এর ফজিলত  কি?  জুমার নামাজের নিয়ত কি? মহান আল্লাহ কি বলেছেন জুমার নামাজ সম্পর্কে?   নবী করিম সঃ জুমার নামাজের সম্পর্কে কি বলেছেন ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো ইনশাআল্লাহ।

জুমার নামাজ কি

ইয়ামুল জুময়া তথা শুক্রবার যোহরের নামাজের সময় আমরা যে নামাজ আদায় করি তাই হলো জুমার নামাজ। তবে এখানে প্রশ্ন আছে যোহরের নামাজ তো ফরজ চার রাকাত কিন্তু জুমার নামাজ তো দুই রাকাত? এটা কি ফরজ?  হ্যা,এটা ফরজ নামাজ।

জুমার নামাজ সম্পর্কে মহান আল্লাহ বলেন,

আরবী অনুবাদ– يَـٰٓأَيُّهَا ٱلَّذِينَ ءَامَنُوٓا۟ إِذَا نُودِىَ لِلصَّلَوٰةِ مِن يَوْمِ ٱلْجُمُعَةِ فَٱسْعَوْا۟ إِلَىٰ ذِكْرِ ٱللَّهِ وَذَرُوا۟ ٱلْبَيْعَ ۚ ذَٰلِكُمْ خَيْرٌۭ لَّكُمْ إِن كُنتُمْ تَعْلَمُونَ (সুরা জুমআ, আয়াত নং ৯)
বাংলা অনুবাদ– হে মুমিনগন! যখন শুক্রবার জুমার নামাজের জন্য আহ্বান করা হয় তখন তোমরা অতি তারাতায় নিয়তড়ি জুমার নামাজ আদায়ের জন্য সকল কাজ কর্ম ফেলে জুমার নামাজ আদায় জন্য মসজিদের দিকে যাও। এটা তোমাদের জন্য সর্বোত্তম, যদি তোমরা জানতে।

আরো পড়ুনঃ পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায়ের ফজিলত ও সময়সূচী

নবী করিম সঃ বলেন– হযরত জাবির ইবনু আবদুল্লাহ রাঃ হতে বর্নিত তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ সাঃ আমাদের উদ্দেশ্য একদিন ভাষন দেওয়ার সময় বললেন, হে মানব জাতি!  তোমরা শোন তোমার মৃত্যুর আগেই আল্লাহর নিকট তাওবা করো এবং দুনিয়ার কাজের মধ্যে জড়ানোর আগে পরকালের কাজ করে নেও। তোমরা তোমাদের রবের যিকির করো এবং যিকির এর মাধ্যমে রবের নৈকট্য লাভ করো। এবং গোপনে বা প্রকাশ্যে অধিক পরিমাণে দান, ছদকা করো কেন না এতে তোমাদের রিজিক বাড়িয়ে দেওয়া হবে। তোমরা জেনে রাখো, আমার আজকের এ দিনে, এ সপ্তাহে, এ মাসে, এ বছরে এবং কিয়ামতের দিন পর্যন্ত জুমার নামাজ ফরজ করে দিয়েছেন মহান আল্লাহ পাক।

জুমার নামাজের ইতিহাস

রাসুলুল্লাহ (সাঃ) মক্কা থেকে মদিনায় আসার আগে থেকেই এ দিনে জুমার নামাজ আদায় করা হতো। হযরত আবু উম্মাহ আসআদ ইবনু যুরারাহ (রাঃ) নেতৃত্বে বনু বাইয়েদা প্রস্তময় সমতল ভুমিতে অবস্তিত, নাকিউল খাযামাতে এ জুমার নামাজ শুরু হয়। ৪০ জন মুসল্লী সহ সর্ব প্রথম জুমার নামাজ মদিনায় শুরু হয়। সে সময় থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত জুমার নামাজ চালু রয়েছে এবং কিয়ামত পর্যন্ত থাকবে।

জুমার নামাজের নিয়ত

জুমার নামাজের নিয়ত এর বাংলা উচ্চারণ ও বাংলা অর্থ নিচে দেয়া হলো –

বাংলা উচ্চারণঃ নাওয়াইতুয়ান উসাল্লিয়া ল্লিলাহি তায়ালা আরবায়া রাকাতাই সালাতিল কাবলাল জুময়াতি, সুন্নাতি রাসুলুল্লাহি তায়ালা মুতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবর।

বাংলা অর্থঃ আমি কেবলা মুখি হয়ে আল্লাহর ওয়াস্তে চার রাকাত কাবলাল জুময়া, সুন্নাতে মুয়াকাদা নামাজ আদায় করিতেছি। আল্লাহ হুআকবার।

জুমার দুই রাকাত ফরজ নামাজের নিয়ত বাংলায়

দুই রাকাত ফরজ জুমার নামাজের নিয়ত বাংলায় নিচে দেয়া হলো-

বাংলা উচ্চারণঃ নাওয়াইতুয়ান উসকিতা আন জুম্মাতী ফারদুজযররি, বি- আদায়ি রাকাআতাই ফারদুজ জুময়াতি ফাদুলল্লাহি তায়ালা মুতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু।

বাংলা অর্থঃ আমার উপর যোহরের নামাজের যে দ্বায়িত্ব রয়েছে, আমি কেবলা মুখি হয়ে জুমার দুই রাকাত ফরজ নামাজ আদায়ের মধ্যমে তা আদায় করতেছি। আল্লহহু আকবার।

আরো পড়ুনঃ সালাতুত হাজত নামাজের নিয়ম ও নিয়ত – 2022

চার রাকাত বাদাল জুমার নিয়ত

বাংলা উচ্চারণঃ নাওয়াইতুয়ান উসালিয়া লিল্লাহি তায়ালা আরবায়া রাকাআতাই সালাতিল বাদাল জুময়া, সুন্নাতি রাসুলুল্লাহি তায়ালা মুতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু।

বাংলা অর্থঃ আমি কেবলা মুখি হয়ে চার রাকাত বাদাল জুময়া সুন্নাতে মুয়াকাদা নামাজ আদায় করিতেছি আল্লাহহু আকবার।

জুমার নামাজ আদায়ের ফজিলত

মহা নবী হযরত মোহাম্মদ সঃ বলেন, মুসলমানদের প্রতি শুক্রবার দিন একটি ঈদের দিনের সমান।তিনি আরো বলেন জাদের হজ্জ করার মতো সম্পাদ নাই তাদের প্রতি শুক্রবার দিন আল্লাহ তায়ালা একটি কবুল হজ্জের ছোঁয়াব দান করবেন। সুবহানাল্লাহ। তাই আমাদের উচিত পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ সময় মতো সঠিক ভাবে আদায় করা এবং প্রতি সপ্তাহে জুমার নামাজ আদায় করা।আল্লাহ পাক রব্বুল আলামীন আমাদের কে সঠিক ভাবে আমোল করার তাওফিক দান করুন আমিন।

জুমার নামাজ পড়ার নিয়ম

জুমার নামাজ আদায় করার সম্পুর্ন নিয়ম সম্পর্কে জানতে নিচের ভিডিও টি দেখে নিতে পারেন-

শেষ কথা

জুমার নামাজের নিয়ত – জুমার নামাজ হলো ফরজ নামাজ তাই আমাদের খুবই গুরুত্ব সহকারে জুমার নামাজ আদায় করা উচিত। আর আমরা যেন সকল মুসলমান জুমার নামাজের ফজিলত পেতে পারি তেমন ভাবে আমল করার তাওফিক দান করুন আমিন।

About admin

In a world where you can have everything. Be a giver first. My hobbies are writing , gaming, and SEO 😊

View all posts by admin →

Leave a Reply

Your email address will not be published.